শিরোনাম

13 Apr 2021 - 09:53:38 pm। লগিন

Default Ad Banner

১০টি আসন চাইবে ওয়ার্কার্স পার্টি

Published on Monday, November 19, 2018 at 1:30 pm 248 Views

সারা দেশের তৃণমূল নেতাদের বাছাই করা নাম নিয়ে প্রাথমিকভাবে ৪৫ জনের একটি প্রার্থী তালিকা তৈরি করেছিলো আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন ১৪ দলীয় জোটের অন্যতম শরিক দল বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি।

সেখান থেকে যাচাই- বাছাই করে ৩৬ জনের নাম ঠিক করা হয়। পরে দলটির নির্বাচন পরিচালনা বোর্ড চুলচেরা বিশ্লেষণ করে ১০ জন প্রার্থীর একটি শর্ট লিস্ট তৈরি করেছে। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জোটের কাছ থেকে দলটি এই ১০টি আসনই চাইবে।

ব্রেকিংনিউজকে এমনটি জানিয়েছেন দলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সদস্য আনিসুর রহমান মল্লিক।

তিনি বলেন, ‘আমরা বর্তমান ৬ জন এমপিসহ আরও ৪ জনের জন্য ১৪ দলীয় জোট থেকে আসন দাবি করবো। ১৪ দলীয় জোট একটি আদর্শিক জোট। আমরা ১৪ দলের কারো বিরুদ্ধে দাঁড়াবো না। তবে মহাজোটের যেসব নেতা আদর্শ ও নীতি নৈতিকতার মধ্যে পড়বে না। আমরা সেসব সিট ওপেন রাখার প্রস্তাব করবো।’

আনিসুর রহমান বলেন, ‘নির্বাচনে হার জিৎ থাকবে। এটা গ্রহণ করার মানসিকতা থাকতে হবে। আমরা চাই নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু হোক।’

দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলটি থেকে যে ছয়জন সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। তারা হলেন- দলের সভাপতি ও সমাজ কল্যাণমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন (ঢাকা-৮ আসন), সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা (রাজশাহী-২)।

এছাড়াও অ্যাডভোকেট মুস্তাফা লুৎফুল্লা (সাতক্ষীরা-১), শেখ হাফিজুর রহমান (নড়াইল-২), ইয়াসিন আলী (ঠাকুরগাঁও-৩), টিপু সুলতান ( এবং বরিশাল-৩)।

দলটির একটি সূত্র জানিয়েছে, নড়াইল-২ আসনে শক্তিশালী প্রার্থী থাকার পরও জাতীয় ক্রিকেট দলের ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজার আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরম কেনা নিয়ে অসন্তুষ্টি রয়েছে। তবে দল এ বিষয়টি বিবেচনার জন্যে আওয়ামী লীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ওপর ছেড়ে দিয়েছে।

এদিকে, একাদশ জাতীয় সংবাদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের শরিকদের জন্য ৬৫ থেকে ৭০টি আসন ছাড় দেওয়ার সম্ভাবনার কথা জানিয়েছেন দলটির সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, শরিকদের উইনেবল প্রার্থী থাকা না থাকার ওপর এ সংখ্যার কম বেশি হতে পারে।

শরিকদের আসন দাবির প্রসঙ্গে কাদের বলেন, শুধু দাবি করলেই তো হবে না। ওই নির্দিষ্ট আসনে শরিকদের উইনেবল প্রার্থী আছে কিনা সেটাও দেখতে হবে। তাদের যদি এমন প্রার্থী বেশি থাকে। তাহলে শরিকদের জন্য আমরা আরও বেশি আসন ছাড় দিতে পারি। আওয়ামী লীগ থেকে অনেকে মনোনয়ন চেয়েছেন, আমরা তো চাইলেই মনোনয়ন দিয়ে দিতে পারি না। আমরা নির্বাচনে যাবো জয়ের জন্য।

Default Ad Banner

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *