21 Oct 2021 - 04:41:04 am। লগিন

Default Ad Banner

হাইকোর্টে গ্যাসের দাম দ্বিতীয় দফা বাড়ানোর সিদ্ধান্ত স্থগিত

Published on Wednesday, March 1, 2017 at 8:49 pm 313 Views

দুই ধাপে গ্যাসের দাম বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়ে বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (বিইআরসি) যে গণবিজ্ঞপ্তি দিয়েছে, সেই বিজ্ঞপ্তির দ্বিতীয় ধাপের কার্যকারিতা ছয় মাসের জন্য স্থগিত করেছেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে গ্রাহকপর্যায়ে দুই ধাপে গ্যাসের দাম বাড়িয়ে জারি করা গণবিজ্ঞপ্তি কেন অবৈধ ও বেআইনি ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন আদালত। বিইআরসির চেয়ারম্যান ও সচিবকে চার সপ্তাহের মধ্যে এ রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে। ভোক্তা অধিকার সংগঠন ক্যাবের এক রিট আবেদনের প্রাথমিক শুনানি শেষে বিচারপতি মইনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি জেবিএম হাসানের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ মঙ্গলবার এ আদেশ দেন। আদালত বলেছেন, যেহেতু আইনে একবার গ্যাসের দাম বাড়ানোর সুযোগ রয়েছে সেহেতু রুল বিচারাধীন থাকাবস্থায় দ্বিতীয় ধাপে বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত ছয় মাসের জন্য স্থগিত করা হল। এ আদেশের ফলে আজ থেকে প্রথম দফায় গ্যাসের দাম বাড়াতে কোনো বাধা নেই। তবে ১ জুন থেকে দ্বিতীয় দফায় দাম আর বাড়ানো যাবে না বলে জানিয়েছেন আইনজীবীরা।
গত ২৩ ফেব্রুয়ারি বিইআরসি দুই ধাপে গ্যাসের দাম বাড়ানোর ঘোষণা দেয়। সে অনুযায়ী প্রথম দফায় আজ ১ মার্চ ও দ্বিতীয় দফায় ১ জুন থেকে দাম বাড়ার কথা। বিইআরসির আদেশ অনুযায়ী আগামী মাস থেকে আবাসিক গ্রাহকদের এক চুলার জন্য ৭৫০ টাকা (বর্তমানে ৬০০ টাকা) ও দুই চুলার জন্য ৮০০ টাকা (বর্তমানে ৬৫০ টাকা) বিল দিতে হবে। আর আগামী জুন মাস থেকে এক চুলার জন্য ৯০০ টাকা ও দুই চুলার জন্য ৯৫০ টাকা বিল দিতে হবে। যেসব আবাসিক গ্রাহকের মিটার আছে, আগামী মাস থেকে তাদের ক্ষেত্রে প্রতি ঘনমিটার ৯ টাকা ১০ পয়সা এবং জুন মাস থেকে ১১ টাকা ২০ পয়সা ধার্য করা হয়েছে। পাশাপাশি যানবাহনে জ্বালানি হিসেবে ব্যবহৃত রূপান্তরিত প্রাকৃতিক গ্যাসের (সিএনজি) দাম ১ মার্চ থেকে প্রতি ঘনমিটারে ৩৮ টাকা এবং ১ জুন থেকে ৪০ টাকা হবে। পাশাপাশি বিদ্যুৎ উৎপাদন, সার, শিল্প ও বাণিজ্যিক খাতেও গ্যাসের দাম দুই ধাপে ৫ থেকে ৫০ শতাংশ পর্যন্ত বাড়ানোর ঘোষণা দেয়া হয় ওই গণবিজ্ঞপ্তিতে।
এ গণবিজ্ঞপ্তিতে ‘আইনের ব্যত্যয় ঘটানো হয়েছে’ অভিযোগ করে এর কার্যকারিতা স্থগিতের জন্য সোমবার ক্যাবের জাতীয় অভিযোগ কেন্দ্রের আহ্বায়ক প্রকৌশলী মোবাশ্বের হোসেন হাইকোর্টে রিট আবেদন করেন। রিট আবেদনে ২০০৩ সালের বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন আইনের লংঘন হয়েছে বলে উল্লেখ করা হয়। আইনের ৩৪ ধারায় বলা হয়েছে, ‘কমিশন কর্তৃক নির্ধারিত ট্যারিফ কোনো অর্থবছরে একবারের বেশি পরিবর্তন করা যাবে না, যদি না জ্বালানি মূল্যের পরিবর্তনসহ অন্য কোনো পরিবর্তন ঘটে।’ রিটকারী পক্ষের আইনজীবী সাইফুল আলম আদালতে বলেন, এক গেজেটেই বিইআরসি দু’বার গ্যাসের দাম বৃদ্ধি করেছে। আইন অনুযায়ী একবারের বেশি তারা বাড়াতে পারে না। এ ব্যাপারে রাষ্ট্রপক্ষে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মোতাহার হোসেন আদালতে বলেন, আইনে আছে বছরে একবার বাড়ানো যাবে। সেখানে মার্চে ও জুনে দু’দফায় বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেয়ায় একটু জটিলতার সৃষ্টি হয়েছে। উভয়পক্ষের শুনানি নিয়ে আদালত রুল ও অন্তর্বর্তী আদেশ জারি করেন।

আদেশের পর আইনজীবী সাইফুল আলম সাংবাদিকদের বলেন, ‘সরকার ২৩ তারিখে গণবিজ্ঞপ্তি জারি করে ১ মার্চ ও ১ জুন থেকে দুই দফায় দাম বাড়ানোর ঘোষণা দিয়েছে। আদালত দ্বিতীয় দফায় অর্থাৎ জুন থেকে গ্যাসের দাম বৃদ্ধির সিদ্ধান্তের ওপর ছয় মাসের স্থগিতাদেশ দিয়ে রুল জারি করেছেন।’

Default Ad Banner

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *