শিরোনাম

12 Apr 2021 - 10:30:22 am। লগিন

Default Ad Banner

হজে যেতে যেকোনো পরিস্থিতি মোকাবিলায় সরকার প্রস্তত: ধর্মপ্রতিমন্ত্রী

Published on Sunday, March 8, 2020 at 4:29 pm 108 Views

 এমসি ডেস্ক:  করোনাভাইরাসের কারণে এই বছর হজে যেতে যে কোনো পরিস্থিতি মোকাবেলায় সরকার প্রস্তুত রয়েছে বলে জানিয়েছেন ধর্মপ্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট শেখ মো. আব্দুল্লাহ। আজ রোববার দুপুরে সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘‘করোনাভাইরাসের বিষয়টি আমরা সতর্কতার সঙ্গে পর্যবেক্ষণ করছি। এ নিয়ে হজে যে কোনো পরিস্থিতি মোকাবেলায় আমাদের প্রস্তুতি রয়েছে। সৌদি সরকারের পক্ষ থেকেও এ বিষয়ে সবধরনের সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছে।’’

তিনি বলেন, ‘‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার তত্ত্বাবধানে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিয়ে আমরা পবিত্র হজের কার্যক্রম পরিচালনা করছি। প্রধানমন্ত্রী নিজে সার্বক্ষণিক খোঁজ খবর রাখছেন। প্রয়োজনীয় দিক নির্দেশনা দিচ্ছেন।’’

করোনাভাইরাসের কারণে যাতে হজযাত্রায় সমস্যা না হয়, হজযাত্রীদের ক্ষতি না হয়, সেজন্য সার্বক্ষণিক সৌদি সরকারের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছেন বলে জানান ধর্মপ্রতিমন্ত্রী।

করোনাভাইরাসের কারণে যেতে না পারলে হজযাত্রীর অর্থ ফেরত দেয়া হবে জানিয়ে শেখ মো. আব্দুল্লাহ বলেন, ‘‘আমি ধর্ম মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নিচ্ছি, খোদা না করুক করোনাভাইরাসের কারণে কেউ যদি হজে যেতে না পারেন, তাহলে সব টাকা তার হাতে ফিরিয়ে দেওয়ার দায়িত্ব আমার।’’ টাকা ফেরত না নিয়ে কেউ যদি পরের বছর হজে যেতে চান, সেই ব্যবস্থাও করা হবে বলে জানান তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে হজ এজেন্সিস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (হাব) সভাপতি এম শাহাদাত হোসেন তসলিম বলেন, ‘‘হাবের পক্ষ থেকেও দায়িত্ব নিয়ে আমি বলছি, করোনাভাইরাসের কারণে কোনো হজযাত্রী যদি হজে যেতে না পারেন,  তাহলে ধর্ম মন্ত্রণালয় যে উদ্যোগ নিয়েছেন আমরাও সেইভাবেই কাজ করবো।’’

চাঁদ দেখা সাপেক্ষে আগামী ৩০ জুলাই (৯ জিলহজ) পবিত্র হজ অনুষ্ঠিত হবে জানিয়ে প্রতিমন্ত্রী জানান, ২৪ ফেব্রুয়ারি মন্ত্রিসভায় এই বছরের সরকারি হজ প্যাকেজ অনুমোদিত হয়েছে। এ বছর সরকারি ব্যবস্থাপনায় তিনটি প্যাকেজ ঘোষিত হয়েছে। খরচ প্যাকেজ-১ এ সর্বমোট ৪ লাখ ২৫ হাজার টাকা; প্যাকেজ-২ এ ৩ লাখ ৬০ হাজার টাকা ও প্যাকেজ-৩ এ ৩ লাখ ১৫ হাজার টাকা। যা প্যাকেট-১ এ গতবারের চেয়ে ৬ হাজার ৫০০ টাকা বেশি; ২-এ ১৬ হাজার টাকা বেশি। এবার সরকারি ব্যবস্থাপনায় প্রথমবারের মতো প্যাকেজ-৩ চালু করা হয়েছে।

প্রতিমন্ত্রী জানান, একইসঙ্গে বেসরকারি হজ এজেন্সিগুলোর জন্য ৩ লাখ ৫৮ হাজার টাকার প্যাকেজ ঘোষণা করা হয়েছে। তবে বেসরকারি এজেন্সিসমূহ সরকারি ব্যবস্থাপনার তিনটি প্যাকেজের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে প্যাকেজ ঘোষণা করতে পারবে। ইতিমধ্যে বেসরকারি হজ এজেন্সিসমূহের সংগঠন হাবও দুটি প্যাকেজ ঘোষণা করেছে।

হজে যেতে ইচ্ছুকদের ১৫ মার্চের মধ্যে নিবন্ধন শেষ করার তাগিদ দেন প্রতিমন্ত্রী। তিনি বলেন, নিবন্ধন শেষে সৌদি সরকারকে হজযাত্রীর সংখ্যাসহ অন্যান্য তথ্য জানাতে হবে। নিবন্ধিত হজযাত্রীদের পিআইডি নম্বর দিতে হবে। হজযাত্রীদের সংখ্যানুপাতে বিমানের ফ্লাইট সিডিউল চূড়ান্ত করতে হবে। বিমানের টিকিটের ব্যবস্থা করতে হবে।

সরকারি-বেসরকারি কতজন হজযাত্রী নিবন্ধন করেছেন জানতে চাইলে প্রতিমন্ত্রী জানান, এ পর্যন্ত সরকারি ব্যবস্থাপনায় ৭২৫ জন এবং বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ৮৪৮ জন নিবন্ধন করেছেন। এ বছর সরকারি ব্যবস্থাপনায় ১৭ হাজার ১৯৮ জন এবং বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ১ লাখ ২০ হাজার মোট ১ লাখ ৩৭ হাজার ১৯৮ জন হজে যেতে পারবেন।

Default Ad Banner

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *