শিরোনাম

12 Apr 2021 - 08:59:21 am। লগিন

Default Ad Banner

স্বামীর নির্যাতনের স্বীকার হয়ে বাবার বাড়িতে এক গৃহবধু

Published on Tuesday, October 27, 2020 at 11:00 pm 40 Views

বিরামপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধি: পারিবারিক কলহের জেরে স্বামীর নির্যাতনের স্বীকার হয়ে স্থানীয় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স চিকিৎসা শেষে একমাত্র শিশু কণ্যাকে নিয়ে বাবার বাড়ীতে অসহায় ভাবে দিন যাপন করছে এক গৃহবধু। জানা গেছে, দিনাজপুরের বিরামপুর উপজেলার খাঁনপুর ইউনিয়নের সন্দলপুর গ্রামের মাহাবুর রহমানের কণ্যা খাদিজার সাথে গত কয়েক বছর পূর্বে একই গ্রামের ইলিয়াসের পুত্র রাসেলের বিয়ে হয়। বিয়ের কিছুদিন পর থেকে খাদিজার স্বামী রাসেল ও শ্বশুর-শাশুড়ী শারিরীক, মানসিক ভাবে তাকে নির্যাতন চালিয়ে আসছিল। এরই মধ্যে তাদের ঘরে এক কণ্যা সন্তানের জন্ম হয়। তবুও খাদিজার উপরে নির্যাতনের মাত্রা কমেনি। এভাবেই চলতে চলতে গত ২ অক্টোবর এক তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে রাতে খাদিজার স্বামী রাছেল তাকে নির্যাতন ও মারপিট করে তার হাত ভেঙ্গে দেয়। ঘটনার পরদিন খাদিজা বাবার বাড়ী চলে যায়। অসহায় পিতা-মাতা গ্রাম্যভাবে কিছু চিকিৎসার চেষ্টা করলেও খাদিজার শারিরীক অবস্থার অবনতি হয়। ফলে ৭ অক্টোবর খাদিজাকে বিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স  ভর্তি করানো হয়। পরে তার বাম হাতে প্লাস্টার করানো হয়। এতে হাতটি পুরোপুরি অচল হয়ে যায়। হাসপাতালে কয়েকদিন চিকিৎসা শেষে খাদিজা আবারও তার বাবার বাড়ী চলে যায়। কিন্তু এর মধ্যে খাদিজার স্বামীর পরিবারের পক্ষ থেকে কোন ধরনের খোঁজ-খবর না নেওয়াই সে গত ১৮ অক্টোবর বিরামপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করে। মামলা নং- ২৪। মামলার পরপরই ওসি মনিরুজ্জামানের নির্দেশে খাদিজার স্বামী রাছেলকে আটক করে হাজতে প্রেরণ করা হয়। বর্তমানে সেই নির্যাতিতা গৃহবধু এক হাত ভাঙ্গা অবস্থায় একমাত্র শিশু সন্তানকে নিয়ে দুর্বিসহ দিনযাপন করছে। মানসিক যন্ত্রণায় দিন কাটাচ্ছে বাবার বাড়ীতেই। সুশীল সমাজে নারীদের জীবনে এমন দুঃখজনক ঘটনা বিরাজমান থাকলে নারীরা কিভাবে ফিরে পাবে তাদের সুন্দর নিরাপদ ভবিষ্যত ও স্বাভাবিক জীবন ধারা এমন প্রশ্ন সচেতন মহলের নাগরিকদের।

 

Default Ad Banner

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *