শিরোনাম

13 Apr 2021 - 05:26:28 pm। লগিন

Default Ad Banner

সৈয়দপুরে রেক্সটন ল্যারেটরীজ মালিকের এক বছরের কারাদন্ড

Published on Friday, May 8, 2020 at 8:55 pm 172 Views

এমসি ডেস্ক :   জেলার সৈয়দপুর উপজেলা শহরে রেক্সটন ল্যাবরেটরীজ (ইউনানী) নামে ওষুধ ফ্যাক্টরী থেকে বিপুল পরিমাণ খোলা ট্যাবলেট এবং মালিকের ভাড়া বাসা থেকে নকল প্যান্টোনিক্স ট্যাবলেট উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় নকল ওষুধ উৎপাদন ও সংরক্ষনের দায়ে মালিকের এক বছর সশ্রম কারাদন্ড ও ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। অনাদায়ে আরও একমাসের কারদন্ড দেয়া হয়। আজ শুক্রবার র‌্যাবের পক্ষে জানানো হয় গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে এ অভিযান পরিচালনা করে র‌্যাব-১৩ ও র‌্যাব ১৪ এর ভ্রাম্যমান আদালত।

সুত্রমতে সৈয়দপুর শহরের নিয়ামতপুর বাস টার্মিনাল এলাকার মাহবুবা প্লাজার মেসার্স রেক্সটন ল্যাবরোটেরিজ (ইউনানি) নামক ওই ফ্যাক্টরীতে অভিযান পরিচালনা করা হয়। অভিযান শেষে ভ্রাম্যমাণ আদালতের উপস্থিতিতে কয়েক লাখ টাকা মূল্যের নকল ওইসব ওষুধ আগুনে পুড়িয়ে ধ্বংস করা হয়।

র‌্যাব ১৩ রংপুর ও র‌্যাব ১৪ ময়মনসিংহের সুত্র জানায়, ময়মনসিংহের বিভিন্ন এলাকায় নকল ওষুধ বিক্রি করা হচ্ছিল দীর্ঘদিন ধরে। এমন অভিযোগের প্রেক্ষিতে র‌্যার ১৪ ময়মনসিংহের সদস্যরা স¤প্রতি ওই এলাকার এক ব্যবসায়ীকে আটক করেন। পরে তাঁর দেয়া তথ্যে আরও দুজনকে বিভিন্ন এলাকা থেকে আটক করা হয়। আটককৃতদের মধ্য থেকে একজনের তথ্যে তারা জানতে পারে ওইসব নকল ওষুধ সৈয়দপুরের রেক্সটন ল্যাবরোটরীজ থেকে কেনা হয়। এমন তথ্যের ভিত্তিতে নকল ওষুধ উদ্ধার এবং এরসাথে জড়িতদের ধরতে র‌্যার ১৪-ময়মনসিংহের উপ অধিনায়ক মেজর আব্দুল্লাহ আল মঈন হাসান ও র‌্যাব ১৩ রংপুরের সিনিয়র সহকারি পুলিশ সুপার হাফিজুল ইসলাম বাবুর নেতৃত্বে যৌথ অভিযান পরিচালনা করা হয় নীলফামারীর সৈয়দপুরে।
সুত্র মতে রেক্সটন ল্যাবরোটরীজের (ইউনানি) মালিক আতিয়ার রহমান পাবনা সদরের কুটিপাড়ার মৃত সামছুদ্দিন মন্ডলের ছেলে। তিনি সৈয়দপুর শহরের শহীদ তুলশীরাম সড়কের বহুতল ভবনে বাসা ভাড়া নিয়ে থাকতেন ও শহরের নিয়ামতপুর বাস টার্মিনাল এলাকার মাহমুদা প্লাজায় ইউনানি ফ্যাক্টরী পরিচালনা করতেন।

র‌্যাব ও ভ্রাম্যমান আদালত প্রথমে তার ভাড়া বাসায় অভিযান পরিচালনায় ওইবাসা থেকে কয়েক লাখ টাকা মূল্যের ৪ কার্টুন নকল প্যানটোনেক্স ট্যাবলেট উদ্ধার করা হয়। পরে শহরের নিয়ামতপুর বাস টার্মিনাল এলাকার মাহমুদা প্লাজায় অবস্থিত ওই ইউনানি ফ্যাক্টরীতে অভিযান চালিয়ে দুই ড্রাম লুজ (খোলা) ট্যাবলেট উদ্ধার করে র‌্যাবের দল। এসময় উদ্ধার করা ওষুধের কোন কাগজপত্র দেখাতে না পারায় রেক্সটন ল্যাবরোটরীজের (ইউনানি) মালিক আতিয়ার রহমানকে (৪৭) আটক করা হয়। পরে সেখানে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে নকল ওষুধ সংরক্ষণ এবং এর স্বপক্ষে কোন কাগজপত্র দেখাতে না পারায় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইনে তাকে এক বছরের সশ্রম কারাদন্ড ও ১০ হাজার টাকা অর্থদন্ড অনাদায়ে আরও একমাসের কারাদন্ডের রায় দেন আদালত।আদালতের এ রায় ঘোষণা করেন নির্বাহী ম্যাজিষ্টেট ও সৈয়দপুর উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভ‚মি) পরিমল কুমার সরকার। এসময় উদ্ধার করা কয়েক লাখ টাকা মূল্যের নকল ওষুধ আগুনে পুড়িয়ে ধ্বংস করা হয়। দন্ডপ্রাপ্ত আসামি আতিয়ার রহমান তাৎক্ষণিক জরিমানার টাকা পরিশোধ করলেও এক বছরের দন্ডপ্রাপ্ত হওয়ায় তাকে নীলফামারী জেল হাজতে পাঠানো হয়।

র‌্যাবের এ অভিযানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন র‌্যাব-১৩ রংপুর সিপিসি -২ নীলফামারী ক্যা¤প কমান্ডার সিহিয়র সহকারি পুলিশ সুপার আবুল কালাম আজাদ,র‌্যাব-১৪ ময়মনসিংহের সহকারি পুলিশ সুপার তফিকুল আলম, উপ-পরিদর্শক মো. ফিরোজসহ অন্যান্য কর্মকর্তাবৃন্দ।

Default Ad Banner

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *