শিরোনাম

17 Apr 2021 - 07:49:47 am। লগিন

Default Ad Banner

রংপুরে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে করোনা রোগী

Published on Friday, April 24, 2020 at 2:41 pm 125 Views

 

বাসেদ আকন্দ : রংপুর মেডিক্যাল কলেজে করোনা শনাক্তে পিসিআর মেশিন স্থাপন করা হয় গত ২ এপ্রিল। এরপর থেকে ২৩ এপ্রিল পর্যন্ত ১৯ ধাপে ২০৫১টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এখানে এখন পর্যন্ত ৬৫ জন করোনারোগী শনাক্ত হয়েছেন। এ ছাড়া সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানে (আইইডিসিআর) মাধ্যমে রংপুর বিভাগে আরো ছয়জনের করোনা শনাক্ত করা হয়। এ নিয়ে রংপুর বিভাগের আট জেলায় আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ৭১ জনে।

আক্রান্তদের মধ্যে মধ্যে রংপুরে ১৫, গাইবান্ধায় ১৪, দিনাজপুরে ১৩, নীলফামারীতে ১১, ঠাকুরগাঁওয়ে আট, কুড়িগ্রামে পাঁচ, লালমনিরহাটে দুই এবং পঞ্চগড় জেলার তিনজন রয়েছেন। আক্রান্তদের বেশির ভাগই ঢাকা, নারায়ণগঞ্জ, সাভার ও গাজীপুরসহ অন্যান্য গার্মেন্টশিল্প এলাকা থেকে গ্রামে এসেছেন বলে জানান রংপুর মেডিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. এ কে এম নুরুন্নবী লাইজু।

এদিকে গতকাল বৃহস্পতিবার রংপুর বিভাগের তিন জেলায় সাতজনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে রংপুর জেলাতেই রয়েছেন পাঁচজন।

অন্যদিকে সোনালী ব্যাংক রংপুর বাজার শাখা লকডাউন করা হয়েছে। ব্যাংকের ওই শাখার ১১ কর্মকর্তা-কর্মচারীর মধ্যে সাতজন অসুস্থ হয়ে পড়লে গত বুধবার সকাল থেকে ব্যাংকের যাবতীয় কার্যক্রম বন্ধ করে দেওয়া হয়। অসুস্থদের মধ্যে দুই দফায় নমুনা সংগ্রহ করে নিয়ে যায় স্বাস্থ্য বিভাগের লোকজন। সোনালী ব্যাংক রংপুর প্রধান শাখার ডিজিএম আব্দুল বারেক চৌধুরী জানিয়েছেন, গতকাল বৃহস্পতিবারের নমুনা পরীক্ষায় ওই শাখার এক কর্মকর্তার করোনা শনাক্ত হয়েছে। সর্বশেষ রংপুরের পাঁচজন আক্রান্তের মধ্যে তিনি একজন। বাকিদের ফলাফল এখনও জানা যায়নি।

রংপুর মেডিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. এ কে এম নুরুন্নবী লাইজু গতকাল রাতে জানান, বৃহস্পতিবার দুই দফায় পরীক্ষায় ১৮৮ জন করোনা সন্দেহভাজনদের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এর মধ্যে সাতজন করোনায় আক্রান্ত বলে চিকিৎসকরা নিশ্চিত হয়েছে। প্রতিদিনই আক্রান্তের বাড়ছে উল্লেখ করে তিনি জানান, এ নিয়ে রংপুর বিভাগের আট জেলায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৭১ জনে দাঁড়িয়েছে।

জানাগেছে, রংপুর জেলার প্রথম করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয় বগুড়াতে। তিনি রংপুর সদরের সদ্যপুষ্করিণী ইউনিয়নের বাসিন্দা। ওই বৃদ্ধের আক্রান্ত হবার দুইদিন পর (৮ এপ্রিল, বুধবার) মিঠাপুকুরের বালারহাটে এক তরুণের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়। এর আট দিন পর বদরগঞ্জ উপজেলার বৈরামপুরে এক যুবক এবং পরের দিনও ওই উপজেলার আউলিয়াগঞ্জের তাবলিগ জামাত ফেরত এক বৃদ্ধ করোনা আক্রান্ত রোগী হিসেবে শনাক্ত হন। এরপর ১৮ এপ্রিল হতে ২২ এপ্রিল পর্যন্ত পাঁচ দিনে আরো ৬ জন করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে। সর্বশেষ গতকাল বৃহস্পতিবার রংপুর জেলায় আরও ৫ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়। আক্রান্তদের মধ্যে রংপুর নগরীর কেল্লাাবন্দ এলাকার ৫৫ বছর বয়সী এক নারী, কারমাইকেল কলেজ এলাকার ৩০ বছর বয়সী এক পুরুষ, রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ৩০ বছর বয়সী এক নার্স, মিঠাপুকুর উপজেলার ৫ বছর বয়সী এক শিশু, পীরগঞ্জ উপজেলার ১৮ বছর বয়সী এক যুবক। এক দিনে এটাই রংপুর জেলায় সর্বোচ্চ আক্রান্ত।

রংপুর জেলা সিভিল সার্জন ডা. হিরম্ব কুমার রায় বলেন, আক্রান্তদের মধ্যে বেশির ভাগ পুরুষ এবং বয়সে যুবক। করোনা শনাক্ত হওয়া রোগীদের বাসাসহ বেশ কিছু প্রতিষ্ঠানে প্রবেশ ও বহির্গমন রোধে ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। রংপুরে দিন দিন আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ার বিষয়কে খারাপ লক্ষণ দাবি করেন সিভিল সার্জন।

Default Ad Banner

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *