16 Sep 2021 - 05:27:10 pm। লগিন

Default Ad Banner

মোদির কাছে কাশ্মির ‘দখলের’ ব্যাখ্যা চায় মার্কিন আদালত

Published on Friday, September 20, 2019 at 7:19 pm 82 Views

এমসি ডেস্কঃ জম্মু-কাশ্মিরকে ভারতের সঙ্গে যুক্ত করা প্রসঙ্গে এবং রাজ্য দুটিতে মানবাধিকার লঙ্ঘনের গুরুতর অভিযোগ খণ্ডাতে মোদি সরকারকে নির্দেশ দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের একটি আদালত। আগামী ২১ দিনের মধ্যে দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং বিজেপি সরকারকে এ বিষয়ে জবাবদিহিতা নিশ্চিতের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

kashmir crisis 2

শুক্রবার পাকিস্তানের সংবাদমাধ্যম দ্য ডন জানায়, কাশ্মির খালিস্তান রেফারেনডাম ফ্রন্টের অভিযোগের ভিত্তিতে যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসের হাউস্টনের জেলা আদালত এ নির্দেশনা জারি করে।

ফ্রন্টের অভিযোগ, গত ৫ আগস্ট ভারত নিয়ন্ত্রিত জম্মু-কাশ্মিরের স্বায়ত্ত্বশাসন কেড়ে নিয়ে মোদি সরকার জোরপূর্বক অঞ্চলটির দখল নিয়েছে।

উপত্যকাটিতে নজিরবিহীন ও দীর্ঘতম কারফিউ চাপিয়ে দিয়ে সারা বিশ্ব থেকে কার্যত যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করা, সেখানকার বাসিন্দাদের মৌলিক চাহিদা পূরণে বাধা সৃষ্টি করা, রাজনৈতিক নেতাসহ সাধারণ জনগণকে অবৈধভাবে আটক করা, ঘর থেকে জোর করে তুলে নেয়া, নির্যাতন এবং বিচারবহির্ভূত হত্যা করার বিষয়গুলো অভিযোগে অন্তর্ভূক্ত করা হয়।

রেফারেনডাম ফ্রন্ট ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ছাড়াও দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ এবং একজন ভারতীয় কর্মী কানওয়াল জিত সিংয়ের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ দায়ের করে।

মার্কিন আদালত এমন এক সময় এ নির্দেশনা দিল যখন আগামী ২২ সেপ্টেম্বর যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসে এক সমাবেশে নরেন্দ্র মোদির বক্তব্য দেয়ার কথা রয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ৫ আগস্ট ভারত নিয়ন্ত্রিত জম্মু-কাশ্মিরের বিশেষ সুবিধা ৩৭০ ধারা সংবিধান থেকে বাতিল করে বিজেপি সরকার। পাশাপাশি জম্মু-কাশ্মির ও লাদাখকে আলাদা আলাদা দুটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হিসেবেও ঘোষণা করা হয়। সেখানকার বাসিন্দারা যেনো এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ না করতে পারে তাই অঞ্চলটিতে আগের দিনই ইতিহাসের কঠোরতম নিরাপত্তা পরিস্থিতি জারি করে মোদি সরকার। বন্ধ করে দেওয়া হয় সেখানকার ল্যান্ডফোন, মোবাইল ও ইন্টারনেট পরিসেবা। এর ফলে কার্যত গোটা বিশ্ব থেকে আলাদা হয়ে পড়ে অঞ্চলটি।

Default Ad Banner

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *