28 Oct 2021 - 02:18:06 am। লগিন

Default Ad Banner

মাদকের বিষাক্ত ছোবলে পাগল প্রায় ফুলবাড়ীর পরিমল

Published on Monday, August 5, 2019 at 10:54 am 232 Views

এমসি ডেস্কঃ কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলার সদর ইউনিয়নের চন্দ্রখানা (শাহ বাজার) গ্রামের মৃত রাজেন্দ্র নাথ রায়ের ৩য় পুত্র পরিমল। তার বাবা পেশায় ছিলেন একজন বাদ্যকর। সেই সুবাদেই পরিমল বেড়ে ঢাক, ঢোল আর তবলা নাড়াচাড়ার মধ্যদিয়েই। পিতার কাছে অন্যান্য ছেলেদের তুলনায় একটু বেশিই প্রিয় ছিল পরিমল। আর সে কারনেই তিনি জীবনের সমস্ত সাধনা প্রয়োগের মাধ্যমে পরিমলকে একজন দক্ষ বাদ্যযন্ত্র শিল্পী হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করার স্বপ্ন দেখতেন।

কিশোর পরিমলও বাবার স্বপ্নকে বাস্তবে রুপ দিতে মনোযোগ সহকারে তবলার বিভিন্ন তালের দীক্ষা নিতে থাকে। আর অল্প দিনের মধ্যেই পরিমল হয়ে ওঠে একজন দক্ষ তবলা বাদক। জয় করেন উপজেলার শ্রেষ্ঠ তবলা বাদকের স্থান। পরিমলের সুনাম ছড়িয়ে পড়ে চারিদিকে। জেলার বিভিন্ন অঞ্চলের মানুষের কাছে প্রিয় একটি নাম হয়ে ওঠে পরিমল। বাংলাদেশ বেতার রংপুর এর বিভিন্ন  অনুষ্ঠানে সে সফলতার সহিত অংশ গ্রহন করে। সদ্য যৌবনে পা রাখা পরিমলকে নিয়ে গর্ববোধ করে তার পরিবার।

কিন্তুু পরিমলকে ঘিরে তার পরিবারের গর্ব ম্লান হতে বেশি সময় লাগেনি। সকলের অগোচরে পরিমল প্রবেশ করে নেশার জগতে। পরিবারের শতচেষ্টার পরেও তাকে নেশার কড়াল গ্রাস থেকে বের করে আনতে পারেনি। ছেলের এমন অবস্হা দেখে তার বাবা চিন্তায় চিন্তায় অসুস্হ্য হয়ে মারা যান। বাবার মৃত্যুর পরে পরিমলের গাঁজা সেবনের মাত্রা আরও বেড়ে যায়। দিনে দিনে সে অস্বাভাবিক আচরণ করতে শুরু করে। এদিকে পিতার মৃত্যুর পরে  বড় দুই ছেলে পৃথক হয়ে যাওয়ায় পরিমলের দেখাশুনার দায়িত্ব তার বিধবা মায়ের কাঁধেই বর্তায়।

তার মা জানায়, মাদকাসক্ত ছেলেকে নিয়ে এই বৃদ্ধ বয়সে তিনি সীমাহীন কষ্টের মধ্যে  আছেন। একদিকে অভাবি সংসার অপর দিকে নেশাগ্রস্হ ছেলের চিকিৎসার খরচ। ছেলেকে নেশা থেকে বিরত রাখতে তার হাতে ও পায়ে শিকল বেঁধে ঘরে আটকে রাখেন। সর্বনাশা নেশার কারনেই পরিমল আজ পাগল প্রায়। তবে  চিকিৎসার মাধ্যমে তাকে স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে আনা সম্ভব বলে তারর  জানান। এ সময় পরিমলের সুচিকিৎসার জন্য সহৃদয়বান সকলের প্রতি সাহায্যের  আবেদন জানান।

Default Ad Banner

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *