27 Jan 2021 - 06:33:00 pm। লগিন

Default Ad Banner

বিরলে বিধান কুমার দত্ত শ্রেষ্ঠ কলেজ শিক্ষক-২০১৯ নির্বাচিত

Published on Thursday, August 22, 2019 at 7:06 pm 117 Views
আতিউর রহমান, বিরল প্রতিনিধিঃ বিরলে বিধান কুমার দত্ত শ্রেষ্ঠ কলেজ শিক্ষক-২০১৯ নির্বাচিত হয়েছেন। এ উপলক্ষ্যে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারের কার্যালয়ে সম্মাননা ও ক্রেস্ট প্রদান করা হয়েছে।
বৃহষ্পতিবার বিকালে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে সম্মাননা ও ক্রেস্ট প্রদান করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার এ বি এম রওশন কবীর।
উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ তৈয়ব আলীর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন সহকারী মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ আরিফ ইকবাল। এছাড়াও উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষ ও প্রধান শিক্ষকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
বিরল উপজেলায় উচ্চ মাধ্যমিক, ডিগ্রী ও অনার্স পাঠদানকারী ১০ টি কলেজ, ৩ টিআলিম মাদ্রাসা ও ৩ টি কারিগরী কলেজে প্রায় ৪ শতাধিক কর্মরত শিক্ষকের মধ্য থেকে বিধান কুমার দত্ত শ্রেষ্ঠ কলেজ শিক্ষক নির্বাচিত হোন। শ্রেষ্ঠ শিক্ষক নির্বাচনে শিক্ষকের যোগ্যতা, দক্ষতার পাশাপাশি প্রশিক্ষণ, মাল্টিমিডিয়া ব্যবহার, সহপাঠ্যক্রমিক কার্যক্রমে অংশগ্রহণ, মৌলিক গবেষণা, প্রকাশনা ইত্যাদি বিষয়ও বিবেচনা করা হয়। পুঁথিগত শিক্ষার পাশাপাশি তিনি শিক্ষার্থীদের নিয়মিত উৎসাহ দেন সুদূর প্রসারী হতে, সার্বিক জ্ঞান আহরণে সফল হতে এবং প্রকৃত মানুষ হতে। তিনি সকলের কাছে আশির্বাদ ও শুভকামনা প্রার্থনা করেন যেন জীবনের শেষদিন পর্যন্ত তিনি শিক্ষার্থীদের মাঝে স্বপ্ন, জ্ঞান ও আলোর বীজ বপন করে যেতে পারেন।
সংক্ষিপ্ত পরিচিতিঃ বিধান কুমার দত্ত জেলার বোচাগঞ্জ উপজেলার সেতাবগঞ্জ পৌরসভাধীন সুগার মিল রোডে পিতা মধু সূদন দত্ত ও মাতা হেনা দত্তর পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। ৩ ভাই ও এক বোনের পরিবারে ব্যক্তি জীবনে তিনি বিবাহিত এবং এক কন্যা ও এক পুত্র সন্তানের জনক।
শিক্ষাজীবনঃ সেতাবগঞ্জ পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় থেকে মাধ্যমিক ও দিনাজপুর সরকারি কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পাশ করে রংপুর কারমাইকেল কলেজ থেকে ইংরেজি সাহিত্যে অনার্স ও মাস্টার্স সম্পন্ন করেন। রাজধানী ঢাকা'র একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজি ভাষায় এম এ ডিগ্রী অর্জন করেন। রংপুর থেকে বি এড ও এম এড সম্পন্ন করেন ও রংপুর আইন কলেজ থেকে এলএলবি সম্পন্ন করেন। ১৯৭১ এর গণহত্যা ও নির্যাতনের উপর পোস্ট গ্রাজুয়েশন কোর্স সম্পন্ন করেন।
পেশাজীবনঃ ১৯৯৮ সালে সালে সেতাবগঞ্জ মহিলা কলেজে ইংরেজি  প্রভাষক হিসাবে যোগদান করে ২০০২ খ্রিঃ পর্যন্ত সুনাম ও সফলতার সাথে শিক্ষকতা করেন।
২০০৩ খ্রিঃ আমেরিকার জন হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি গবেষণা প্রকল্পে অনুবাদক হিসাবে যোগ দিয়ে ২০১০ খ্রিঃ পর্যন্ত গাইবান্ধা ও রংপুর অঞ্চলে সফলতার সাথে দায়িত্ব পালন করেন। পাশাপাশি তিনি ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি গবেষণা প্রকল্পেও খন্ডকালীন অনুবাদক হিসাবে কাজ করেন। ২০১০ খ্রিঃ বিরলের বোর্ডহাট মহাবিদ্যালয়ে যোগদান করেন। পাশাপাশি তিনি দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজে ইংরেজি ভাষা প্রশিক্ষণের কোর্স কো-অর্ডিনেটর এবং দিনাজপুর কে বি এম কলেজ ক্যাম্পাসে উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়মিত পরীক্ষক।
সহপাঠ্যক্রমিক কার্যক্রমঃ বিরল সায়েন্স একাডেমি (জাতীয় পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ বিজ্ঞান ক্লাব হিসাবে পুরস্কার প্রাপ্ত) এর সমন্বয়কারী। বিরল ইংলিশ স্পিকিং ক্লাব এর প্রেসিডেন্ট। বাংলাদেশ ইতিহাস সম্মীলনী দিনাজপুর জেলা শাখা'র কার্যকরী সদস্য। মুক্তিযুদ্ধের গবেষক হিসাবে মুক্তিযুদ্ধের গবেষণা গ্রন্থ- "রাজবাটি, গুঞ্জাবাড়ী গণহত্যা ও নির্যাতন" প্রকাশের পথে। জাতীয় সৃজনশীল মেধা অন্বেষণসহ বিভিন্ন মেধাভিত্তিক ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতার বিচারক হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। বিশ্ব সাহিত্য কেন্দ্রের বই পড়া কর্মসূচীর সফল সংগঠক। উপস্থাপক, ছড়াকার ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব হিসাবেও রয়েছে উনার অনেক খ্যাতি। দেশ বিদেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে এবং কর্মজীবনে তাঁর অসংখ্য শিক্ষার্থী সফলতার ছাপ রেখেছে।
Default Ad Banner

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *