21 Jan 2021 - 10:59:09 pm। লগিন

Default Ad Banner

বিরলে এক মহিলার লাশ উদ্ধার

Published on Friday, August 23, 2019 at 11:44 am 164 Views

আতিউর রহমান, বিরল (দিনাজপুর)ঃ বিরলে এক মহিলার লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। হত্যা নাকি আত্মহত্যা এ নিয়ে চলছে ব্যাপক গুঞ্জন। ছেলে গরু বিক্রি করে টাকা চাওয়ায় মা টাকা দিতে রাজি না হওয়ায় এ হত্যাকান্ড হয়ে থাকতে পারে বলে প্রতিবেশিরা দাবী করেছে।
প্রতিবেশি মুত ভুলু মোহাম্মদের পুত্র আজিজুল হক জানান, উপজেলার ধর্মপুর ইউপি’র ধর্মজৈন (ভূটিয়াবন) গ্রামের মৃত জহুর আলীর স্ত্রী ফুলমতি বেওয়া (৬০) এর নিকট গরু বিক্রি করে ছেলে টাকা চাওয়ায় মা টাকা দিতে রাজি না হওয়ায় গত ৩ দিন যাবৎ আটকে রেখে শারীরিক নির্যাতন করে। গত ১৯ আগস্ট রাত আনুমানিক সাড়ে ৯ টায় নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে ফুলমতি প্রতিবেশি আজিজুল এর বাড়ীতে আত্মরক্ষার জন্য যায়। এ সময় ইউপি সদস্য কবীর হোসেনকে ঘটনাটি অবগত করে আজিজুল হক। পরে আর নির্যাতন করবে না বলে ফুলমতি কে পুত্র আনজু ওরফে ফুলু মিঞা (৪০), পুত্রবধূ মাহফুজা বেগম (৩৫), নাতী মফিজুল (২৫) ও নাতনী আছমা (২০) বাড়ীতে নিয়ে যায়।

এরপর হতে ফুলমতিকে আর বাড়ীর বাহিরে বাহির হতে দেয়া হয়নি। ২২ আগস্ট বৃহষ্পতিবার সকাল ৯ টায় ফুলমতি বিষপানে আত্মহত্যার চেষ্টা করছে বলে অপপ্রচার চালালে প্রতিবেশিরা ভ্যানযোগ তাঁকে হাসপাতালে পাঠানোর প্রস্তুতি নিলে প্রতিবেশিদের কাউকে বাড়ীতে প্রবেশ করতে দেয়া হয়নি বলে জানান।
একই এলাকার কলমদারের পুত্র ভ্যানচালক রফিকুল ইসলাম (২৫) জানান, তিনি ভ্যানযোগে হাসপাতালে আনতে গেলে পরিবারের বাঁধায় কেউ নির্যাতিতাকে হাসপাতালে নিতে পারেনি। দুপুর আনুমানিক ১২ টা ৪০ মিনিটে ফুলমতি মারা গেছে বলে ছেলে ও ছেলেরবউ প্রার করলে প্রতিবেশিরা দরজা ঠেলে বাড়ীর ভেতরে প্রবেশ করে এবং লাশ ঘর থেকে বাড়ীরবাহিরে বের করে আনে রাখে থানা পুলিশে সংবাদ দেয়। সন্ধ্যায় এ রিপোর্ট লেখাকালীনজগতপুর পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ এস আই রুস্তম আলীসহ সঙ্গীয় পুলিশ ফোর্সলাশের সুরতহাল রিপোর্ট প্রস্তুতপূর্বক লাশ থানায় নেয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছিল।জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুত্রবধূ মাহফুজা বেগমকে পুলিশ আটক করেছে বলে এলাকাবাসীজানালেও থানা পুলিশের কোন বক্তব্য পাওয়া যায়নি। প্রত্যক্ষ্যদর্শীরা লাশের ডানগালে আঘাত ও মুখ দিয়ে ফেনা বাহির হয়েছে বলে জানান। থানার পরিদর্শক (তদন্ত) এ এম এম নাজমুল আহমেদ জানান, লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে।

Default Ad Banner

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *