শিরোনাম

13 Apr 2021 - 04:04:35 pm। লগিন

Default Ad Banner

পার্বতীপুরে প্রতিবন্ধী দিবস উদযাপিত

Published on Tuesday, December 3, 2019 at 6:59 pm 98 Views

তাজুল ইসলাম তাজঃ (জিবিকে) মধ্যপাড়া পার্বতীপুরের ১০ নং হরিরামপুর ইউনিয়নে সমবৃদ্ধি কর্মসূচির আওতায় ০৩ ডিসেম্বর ২৮তম আন্তর্জাতিক এবং ২১ তম জাতীয় প্রতিবন্ধী দিবস উদযাপিত হয়েছে ।
প্রতিবন্ধী দিবসের কর্মসূচি হিসাবে মধ্যপাড়া সবজি বাজার হতে মহাসড়ক দিয়ে পাথর খনি গেট পর্যন্ত র‌্যালি বের করেন। পরে জিবিকে মধ্যপাড়া কার্যালয়ে আলোচনা সভার আয়োজন করেন।
উক্ত আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন, জিবিকে সমবৃদ্ধি কর্মসূচির সম্মনয়কারী মোঃ আতাউর রহমান তিনি তার বক্তব্যে বলেন, ৩ ডিসেম্বর ২৮তম আন্তর্জাতিক এবং ২১তম জাতীয় প্রতিবন্ধী দিবস। ২০১৩ সালে প্রতিবন্ধীদের জন্য দেশে নতুন এ আইন প্রনয়ণ করা হয়। আমরা এই আইনের উপর শ্রদ্ধাশীল হয়ে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিতে পেরেছি।
তবে এখনো যে শতভাগ প্রতিবন্ধী ব্যক্তি তার অধিকার থেকে বঞ্চিত রয়েছে তা শুধু ভুক্তভোগীরাই বুঝতে পারবে বা জানতে পারবে। আমরা আমাদের সাধ্যমতো সহযোগিতা দিয়ে যাবো এতে কোন সন্দেহের অবকাশ নেই।
আরো উপস্থিত ছিলেন জিবিকে সমবৃদ্ধি কর্মসূচির এরিয়া ম্যানেজার (বদরগঞ্জ) স্বপন কুমার রায়। তিনি তার বক্তব্যে বলেন, শিক্ষাক্ষেত্রে চাইলে দেখা যায় প্রতিবন্ধী শিক্ষিতদেরকে কোন চাকরি দেওয়া হয়নি এখনো। কোটা দেখিয়ে দেখিয়ে কোটাতেও চাকরি পায়না কোন প্রতিবন্ধী ব্যক্তি, কেন তবে কোটা রাখা হয়? সরকার বলেছে প্রতিবন্ধীদেরকে আলাদাভাবে আলাদা চোখে দেখবে অথচ এখনো তার সুফল প্রতিবন্ধী ব্যক্তিরা পায় নাই। আমরা এ ব্যাপারে প্রতিবন্ধীদের জিবিকের পক্ষ থেকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিব।
আরো উপস্থিত ছিলেন জিবিকের প্রোগ্রাম অফিসার হিরো কুমার। তিনি তার বক্তব্যে বলেন, যানবাহনের ধীকে চাইলে দেখা যায় সরকারের দেওয়া নির্দিষ্ট সিট বাসে দুইটি রয়েছে প্রতিবন্ধীদের জন্য আলাদা, কিন্তু এখনো এই দুই সিট প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের জন্য সচরাচর সচল কিংবা প্রতিবন্ধী ব্যক্তি দ্বারা ব্যবহার করা হয়না; বরং অপ্রতিবন্ধী ব্যক্তিরাই তা দখল করে বসে রয়। আবার প্রতিবন্ধী ব্যক্তি রাস্তায় গাড়ি সিগনাল দিলে ৯০ভাগ গাড়িচালক প্রতিবন্ধী ব্যক্তিকে গাড়িতে তুলেনা । এই খানকেও আমরা আমাদের জিবেকের সহযোগিতা প্রতিবন্ধীদের জন্য উম্মুক্ত রাখবো।
অন্যানোদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ইউনিয়ন প্রবীণ কমিটির সাধারণ সম্পাদক ইয়াদ আলী তিনি তার বক্তব্যে বলেন, সরকারের দেওয়া প্রতিবন্ধী ব্যক্তির জন্য নির্দিষ্ট করা হয়েছে মাসিক ৭৫০ টাকা যা গড় প্রতিদিন ২৫টাকা করে হয়।একবার কি ভেবে দেখেছেন এই ২৫টাকায় নিত্যদিনের খরচ কিভাবে মিটাতে হয়? প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের মধ্যে যারা সামান্য চলাফিরা করতে পারে যেমন শারীরিক প্রতিবন্ধী আর যত ধরনের প্রতিবন্ধী রয়েছেন সবাই অচল এবং বেশি অচল যারা হুইলচেয়ার ব্যবহার করেন তারা। কোন রুজিরোজগার করতে পারেনা প্রায় ৯৫ ভাগ প্রতিবন্ধীরা। তারা বেশিরভাগ পরিবারের বোঝা আর সরকারের দেওয়া ভাতার উপর নির্ভরশীল। এখন ধরুন একজন মানুষের নিত্যপ্রয়োজনীয় বাজারের দ্রব্যমূল্য যে হারে বাড়ছে তা মাত্র ২৫ টাকায় কি কি জিনিস ক্রয় করা যাবে? জিবিকে যেন এ ব্যাপারে অবশ্যই বিবেচনা করেন এবং সরকারের যেনো এর দৃষ্টিগোচর হয়। আরো উপস্থিত থেকে অনুষ্ঠানটি সাফল্য মন্ডিত করেছেন জিবিকের বিভিন্ন প্রোগ্রামের মাঠ কর্মীবৃন্দরা।

Default Ad Banner

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *