16 Jun 2021 - 02:00:57 pm। লগিন

Default Ad Banner

তাপবিদুৎ কেন্দ্রে শ্রমিক নিয়োগের দাবীতে বিক্ষোভ, উভয়পক্ষ মুখোমুখি হওয়ায় অত্র এলাকা রণক্ষেত্রে পরিণত

Published on Monday, April 8, 2019 at 3:04 pm 228 Views

কোয়াসিম সিদ্দিকী জনি/ আল আমিন বিন আমজাদ: দিনাজপুর বড়পুকুরিয়া তাপবিদুৎ কেন্দ্রে ৩য় ইউনিটে শ্রমিক নিয়োগের দাবীতে শ্রমিক অধিকার আন্দোলন কমিটির বিক্ষোভ।

৮ এপ্রিল সকাল সাড়ে ১০টায় বড়পুকুরিয়া তাপবিদুৎ কেন্দ্রে ৩য় ইউনিটের শ্রমিক অধিকার আদায়ের আন্দোলন পরিচালনা কমিটির সভাপতি মোঃ হাবিবুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক মোঃ আবু সাঈদ এর নেতৃত্বে এক বিক্ষোভ মিছিল শেষে তাপবিদুৎ কেন্দ্রে ৩য় ইউনিটের প্রধান ফটকের সামনে রেল লাইনের উপর বিক্ষোভ অব্যাহত রাখে। ৮ এপ্রিল তাপ বিদ্যুৎ কতৃপক্ষের নিয়োগপ্রাপ্ত ২০ জন পরিচ্ছনতা কর্মীকে নিয়োগ দেওয়ার কথা ছিল । এরই প্রতিবাদে শ্রমিক অধিকার আন্দোলন কমিটি তাদেরকে নিয়োগ দিতে বিরোধীতা করে।

শ্রমিক অধিকার আদায়ের আন্দোলন পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক জানান, আমরা ২০১৭ সাল থেকে স্থানীয় শ্রমিকদের অধিকার আদায়ে আন্দোলন করে আসছি। তাপবিদুৎ কতৃপক্ষ আমাদের সাথে তালবাহানা শুরু করলে আমরা আমাদের অধিকার আদায়ের জন্য আজকে এ পর্যায়ে উপনীত হয়েছি। তাদের আন্দোলনের ফলে তৃতীয় পক্ষের অধীনে ১৫৪ জন শ্রমিককে নিয়োগ দেওয়ার সকল প্রস্তুতি সম্পূর্ণ হওয়ার পরেও একটি অদৃশ্য শক্তির প্রভাবে তাদেরকে বাদ দিয়ে বাহির থেকে শ্রমিক নিয়ে এসে নিয়োগ দেয়ার চেষ্ঠা করছে। বাহিরের শ্রমিক নিয়োগ বন্ধ করে তাদেরকে অগ্রাধীকার ভিত্তিতে নিয়োগ দেওয়ার দাবি জানান। তারা আরও বলেন, আমাদের যৌক্তিক দাবি মেনে নিয়ে জেলা প্রশাসকসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ আন্দোলনরত শ্রমিকদের তৃতীয় পক্ষের অধীনে নিয়োগ দেওয়ার প্রতিশ্রুতিও দিয়েছিল। অথচ একটি প্রভাবশালী মহল আন্দোলনরত শ্র্রমিকদের নিয়োগ না দিয়ে তাদের ইশারায় তাপবিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষ আমাদের সাথে তালবাহান করছে। এই কারণে সকল শ্রমিকের নিয়োগ না হওয়া পর্যন্ত এই অবরোধ কর্মসূচী চলবে।

এদিকে  শ্রমিকদের আন্দোলনের খবর পেয়ে পার্বতীপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার রেহানুল হক ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

বর্তমান বড়পুকুরিয়া তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্র এলাকায় শ্রমিকদের মাঝে চরম অসন্তোষ বিরাজ করছে। আইন শৃঙ্খলা রক্ষার্থে অতিরিক্ত সেনা সদস্য ও পুলিশ সর্বাত্ত্বক দায়িত্ব পালন করছেন। এ ব্যাপারে তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের প্রধান প্রকৌশলী আব্দুল হাকিম সরকারের সাথে মুঠো ফোনে কথা বললে তিনি জানান, এখানে ১৬ থেকে ১৭ জন শ্রমিক নেয়ার সুযোগ আছে। এর বাহিরে শ্রমিক নেয়ার কোন সুযোগ নেই। যারা আন্দোলন করছে তারা অযথা বিবাদ সৃষ্টি করছে। একই মন্তব্য করলেন সহকারী প্রকৌশলী মাহাবুবুর রহমান।

অপরদিকে বেলা দেড় টার দিকে খাজা মঈনুদ্দীন, স্থানীয় ঠিকাদার ও ২০ গ্রাম উন্নয়ন কমিটির সাধারন সম্পাদক আরিফুল ইসলাম সুমন ও মহসীন তাপবিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষের নিয়োগপ্রাপ্ত ৬ জন শ্রমিককে নিয়ে যোগদানের উদ্দেশ্যে ঐ সময় তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের প্রধান ফটকে যায়। সেখানে তারা দাড়ানো মাত্রই আন্দোলনরত শ্রমিকদের নেতা সাঈদ এর নেতৃত্বে ৭-৮ জন ব্যক্তি লাঠি-সোঠা নিয়ে তাদের উপর হামলা করে। এতে তেনারা মাথায় চরমভাবে জখমপ্রাপ্ত হলে প্রথমে তাদেরকে তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে পার্বতীপুর হলদিবাড়ী স্বাস্থকেন্দ্রে নেয়া হয়। পরবর্তীতে অবস্থার অবনতি হলে সকলকে দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

এই ঘটনার পর বিকেল সাড়ে চারটার দিকে উভয়পক্ষ মুখোমুখি অবস্থান নিলে অত্র এলাকা রণক্ষেত্রে পরিণত হয়। পরবর্তীতে এ ঘটনায় আহত হন ফুলবাড়ী উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক মেহেদী হাসান, ছাত্রলীগ কর্মী সাধন ও মানিক।

হামলার বিষয়টি নিয়ে কথা হয় স্থানীয় ঠিকাদার ও ২০ গ্রাম উন্নয়ন কমিটির সাধারন সম্পাদক আরিফুল ইসলাম সুমন এর সাথে। তিনি বলেন, তাপবিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষের নিয়োগপ্রাপ্ত ৬ জন শ্রমিককে নিয়ে যোগদানের উদ্দেশ্যে আমরা ঐ সময় তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের প্রধান ফটকে যাই। সেখানে দাড়ানো মাত্রই আন্দোলনরত শ্রমিকদের নেতা সাঈদ এর নেতৃত্বে ৭-৮ জন ব্যক্তি লাঠি-সোঠা নিয়ে আমাদের উপর হামলা করে।

ঘটনার পরের দিন বেলা ২ টার সময় তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের সহকারী প্রকৌশলী মাহাবুবুর রহমানের সাথে মুঠো ফোনে কথা হলে তিনি জানান, আজকে এখানকার পরিবেশ অত্যন্ত শান্ত রয়েছে। আইন শৃঙ্খলা রক্ষায় অতিরিক্ত সেনা ও পুলিশ মোতায়ন রয়েছে। গতকালের ঘটনায় (৯মার্চ) মঙ্গলবার বিকেলে আইন শৃঙ্খলা সংক্রা্ন্ত একটি সভা অনুষ্ঠিত হবে।

Default Ad Banner

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *