03 Dec 2021 - 09:32:06 pm। লগিন

Default Ad Banner

ঠাকুরগাঁওয়ে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ: পলাতক ধর্ষক, হাজতে মা ও বোন

Published on Saturday, July 6, 2019 at 5:23 am 278 Views
 স্কুলে পরীক্ষা দিয়ে বাড়ীতে ফেরার সময় দশম শ্রেণির এক স্কুলছাত্রীকে রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে বাড়ীতে ধর্ষণের পর ওই স্কুলছাত্রীকে মারধর করে অজ্ঞান অবস্থায় স্কুলছাত্রীর বাড়ীতে ফেলে দিয়ে এসেছে ধর্ষক সুজন আলী (২০) ও তার সহযোগিরা। মেয়েটি বিষয়টি ফাঁস করলে মেরে ফেলার ভয়ভীতিও দেখিয়েছে স্কুলছাত্রীর পরিবারকে সুজন।

অজ্ঞান অবস্থায় স্কুলছাত্রীকে উদ্ধার করে বালিয়াডাঙ্গী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গত বৃহস্পতিবার বিকালে ভর্তি করে তার পরিবারের লোকজন। স্কুলছাত্রীর শারীরিক অবস্থা বেগতিক দেখে শুক্রবার দুপুরে তাকে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসাপাতালে রেফার্ড করে দেওয়া হয়। মেয়েটি বর্তমানে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসাপাতালে অসুস্থ্য অবস্থায় মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে।

এ ঘটনায় ধর্ষক সুজন আলীকে গ্রেফতার করতে ব্যর্থ হলেও ধর্ষকের মা জরিমন বেগম (৪৭) ও বোন ইয়াসমিন আক্তারকে আটক করে শুক্রবার দুপুরে জেল হাজতে পাঠিয়েছে বালিয়াডাঙ্গী থানা পুলিশ।
স্কুলছাত্রীর ভাই জানান, বৃহস্পতিবার কালমেঘ আর আলী উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজ থেকে দশম শ্রেণির দ্বিতীয় সাময়িক পরীক্ষা দিয়ে বাড়ীতে ফেরার সময় রাস্তা থেকে মুখ চেপে ধরে নিয়ে যায় সুজন আলী ও তার পরিবারের লোকজন। বাড়ীতে ধর্ষণের সময় চিৎকার করলে স্কুলছাত্রীকে বেধরক মারপিট করে তারা। এরপর অজ্ঞান হয়ে পড়লে মোটরসাইকেলে করে বাড়ীতে ছুড়ে ফেলে দিয়ে আসে স্কুল ছাত্রীকে।
স্কুল ছাত্রীর বাবা জানান, গত ৩ মাস ধরে আমার নাবালিকা মেয়েকে উত্যক্ত করে আসছিল সুজন আলী। বিষয়টি তার পরিবারকে জানালে আরও ভয়ঙ্কর হয়ে উঠে সুজন।
ধর্ষক সুজন আলী ও তার পরিবারের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানিয়ে স্কুল ছাত্রীর মা জানান, মেয়েকে ধর্ষণের পর বাড়ীতে ছুড়ে ফেলে দিয়ে গেছে। আবার শাসিয়ে গেছে বিষয়টি নিয়ে যেন আইনের আশ্রয় না নেই। কোথায় বাস করছি আমরা। দেশে কি আইন বলতে কিছু আছে?
বালিয়াডাঙ্গী থানার ওসি মোসাব্বেরুল হক ও মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই আমজাদ হোসেন জানান, স্কুলছাত্রীকে তুলে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণের ঘটনায় সুজন আলী, তার বাবা ইসলাম উদ্দীন, মা জরিমন বেগম, বোন ইয়াসমিন আক্তার এবং সহযোগি প্রতিবেশী ফরহাদ হোসেনকে আসামী করে মোট ৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন ওই স্কুলছাত্রীর বাবা। পুলিশ ধর্ষকের মা ও বোনকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছে। এছাড়া ধর্ষক ও বাকী আসামীদের গ্রেফতার করতে পুলিশ তৎপর অভিযান অব্যাহত রেখেছে। আশা করছি খুব শ্রীঘ্রই ধর্ষক আটক হবে।
Default Ad Banner

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *