শিরোনাম

12 Apr 2021 - 10:13:26 am। লগিন

Default Ad Banner

জেলা প্রশাসকের হস্তক্ষেপে ডুবে থাকা ফসলি জমির জলাবদ্ধতা নিরসন 

Published on Saturday, October 24, 2020 at 10:10 pm 55 Views
লিমন হায়দার: দিনাজপুরের ফুলবাড়ী উপজেলার খয়েরবাড়ি ও দৌলতপুর ইউনিয়নের বারাইপাড়া,লক্ষিপুর, জয়নগর,গড়পিংলাই সহ কয়েটি এলাকার প্রায় ৩  হাজার বিঘা ফসলি জমিতে দীর্ঘদিনের জলাবদ্ধতা নিরসন কাজের আনুষ্ঠানিক ভাবে  উদ্বোধন করেছেন  জেলা প্রশাসক মাহমুদুল আলম।শনিবার (২৪ অক্টোবর) দুপুর ১২ টায় উপজেলার দৌলতপুর ইউনিয়নের বারাইপাড়ায় কোদাল হাতে জেলা প্রশাসক ড্রেন খননের কাজ উদ্বোধন করেন।স্থানীয় কৃষকরা জানান,দীর্ঘ ৫ বছর ধরে ফুলবাড়ীর খয়েরবাড়ি-দৌলতপুরসহ আশপাশের প্রায় ৩ হাজার বিঘা জমিতে জলাবদ্ধতা থাকার কারণে কোন ধরণের চাষাবাদ হচ্ছিল না। দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন মহলে কৃষকরা দাবি জানিয়ে আসলেও কোন সমাধান পায়নি। সর্বশেষ  জেলা প্রশাসক মাহমুদুল আলম নিজেই এই জলাবদ্ধতা নিরসনে মাঠে নেমেছেন।দৌলতপুর মৌজায় দীর্ঘ ৫ বছর ধরে জলাবদ্ধতা থাকার কারণে আলম সরকার তার ১ একর জমিতে কোন ধরণের চাষাবাদ করতে পারছিলেন না। আলম সরকার জানান, আমার ৩ বিঘা জমিতে গত কয়েক বছর ধরে জলাবদ্ধতার কারণে কোন চাষাবাদ করতে পারছিলাম না! তিনি আরও জানান,মাত্র ৩০০ ফিট একটি ড্রেন না থাকায় হাজার-হাজার বিঘা জমিতে কৃষকরা  ফসল উৎপাদন করতে পারছিল না। ৩০০ ফিটের ড্রেনটি নির্মাণ কাজ শেষ হলে কয়েক শত কৃষক পরিবার তাদের জমিতে ফসল ফলাতে পারবে।খয়েরবাড়ি এলাকার কৃষক মোঃ জালাল উদ্দিন বলেন, একটা ড্রেন না থাকায় আমাদের হাজার- হাজার বিঘা জমিতে ফসল ফলাতে পারছি না। ইতিপূর্বে এই এলাকার চেয়ারম্যান উপজেলার বিভিন্ন দপ্তরে ও জেলার বিভিন্ন দপ্তরে যোগাযোগ করেছে এই জলাবদ্ধতা নিরসনের জন্য। কিন্তু কোন কাজ হয়নি। সর্বশেষ দিনাজপুরের জেলা প্রশাসক  আমাদের দাবির প্রেক্ষিতে আজকে নিজেই কোদাল নিয়ে মাঠে নেমেছেন। দু'একদিনের মধ্যেই এই ড্রেনটির নির্মাণ কাজ শেষ হলে আমরা আবার জমি গুলোতে সোনার ফসল ফলাতে পারব। ড্রেন নির্মাণ কাজে এগিয়ে আসেন ফুলবাড়ী উপজেলার শিক্ষক,সুধিজন,কৃষক,কৃষাণী, স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীসহ কয়েক হাজার মানুষ। এ বিষয়ে ফুলবাড়ী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আতাউর রহমান মিল্টন বলেন,দীর্ঘদিন ধরে খয়েরবাড়ী ও দৌলতপুর ইউনিয়নসহ আশপাশের প্রায় ৩ হাজার বিঘা জমিতে জলাবদ্ধতা থাকার কারণে কয়েক শত কৃষক ফসল ফলাতে পারেনি। বিষয়টি নিয়ে আমরা উপজেলার প্রতিটি সভায় আলোচনা করেছি। কিন্তু কোন কাজ হয়নি।বিষয়টি স্থানীয় এমপি মোস্তাফিজুর রহমান ফিজার মহোদয়ও জানেন। জলাবদ্ধতা নিরসনে তিনিও চেষ্টা করেছেন।আজকে এই জলাবদ্ধতা নিরসনের জন্য জেলা প্রশাসক  নিজেই এসেছেন। ড্রেন নির্মাণের কাজ চলছে। দ্রুতই কাজ শেষ হলে কয়েক শত পরিবার উপকৃত হবে।জানতে চাইলে দিনাজপুরের জেলা প্রশাসক মোঃ মাহমুদুল আলম সাংবাদিকদের বলেন,ফুলবাড়ী উপজেলার খয়েরবাড়ী ও দৌলতপুর এলাকার প্রায় ৩  হাজার বিঘা জমিতে দীর্ঘদিন ধরে জলাবদ্ধতা থাকার কারণে কৃষকরা ফসল ফলানো থেকে বঞ্চিত ছিল। আমার কাছে বিষয়টি এলাকাবাসী জানালে, আমি সরেজিমন পরিদর্শন করি।  কয়েক শত পরিবার যাতে তাদের কৃষি জমিতে ফসল ফলাতে পারে সেজন্য একটি ৩০০ ফিট পরিমান ড্রেন নির্মাণ করার পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। তার প্রেক্ষিতেই আজকে  এলাকাবাসীর সাথে একাত্বতা ঘোষণা করে এবং স্বেচ্ছাশ্রমে ড্রেন নির্মাণের কাজ শুরু করা হয়। ড্রেন নির্মাণ শেষ না হওয়া পর্যন্ত পুরো বিষয়টি আমি নিজেই তদারকি করব। এছাড়াও ড্রেন নির্মাণের ফলে যেসব কৃষকের ক্ষতি হয়েছে তারাও জমি এবং ফসলের ক্ষতিপূরণ পাবেন। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ফুলবাড়ীর  বিদায়ী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও ) মোঃখায়রুল আলম সুমন, নবাগত উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ রিয়াজ উদ্দিন, উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি মোছাঃ কানিজ আফরোজ, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মোছাঃ নিরু সামসুন্নাহার, ফুলবাড়ীর ৭টি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানগন,স্থানীয় সাংবাদিকবৃন্দ, বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ ও অত্র এলাকার কয়েক হাজার নারী পুরুষ।
Default Ad Banner

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *