শিরোনাম

17 Apr 2021 - 07:43:55 am। লগিন

Default Ad Banner

জিয়ার“লের প্রতারণার ফাঁদে পড়ে সর্বস্ব হারালো এক অসহায় নারী

Published on Thursday, August 6, 2020 at 10:15 pm 82 Views

পি সি দাস : দিনাজপুর সদর উপজেলার ১০নং কমলপুর ইউ,পি’র বড়গ্রাম ভাতখইর এলাকার মোঃ সাইদুর রহমানের ছোট ছেলে মোঃ জিয়ার“ল ইসলামের ফাঁদে পড়ে ৯নং আস্করপুর ইউ,পি’র এক অসহায় নারী সর্বস্ব  হারিয়ে এখন দিশেহারা। বাদীর দিনাজপুর কোতয়ালী থানায় দাখিলকৃত মামলার এজাহার, বড়গ্রাম এলাকার স্থানীয় বাসিন্দাসহ বিভিন্ন মহলের তথ্য মতে জানা গেছে, জিয়ার“ল ইসলাম একজন কুখ্যাত মাদক ব্যবসায়ী। ৯নং আস্করপুর ইউ,পি’র এক অসহায় নারীর সাথে মোঃ জিয়ার“ল ইসলাম দীর্ঘ ৪ বছর ধরে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তুলে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে একাধিকবার জোরপূর্বক দৈহিক সম্পর্ক করে। বিষয়টি উক্ত নারীর বাড়িতে জানাজানি হলে তার বাবা-মা তাকে বাড়ি থেকে বের করে দিতে চাইলে মেয়েটি বাড়ি থেকে বের হয়ে গত ২ আগষ্ট ১০নং কমলপুর ইউ,পি’র প্রতারক জিয়ার“লের বাড়িতে অবস্থান করলে জিয়ার“লের পিতা মোঃ সাইদুর রহমান ও জিয়ার“লের বন্ধু বেলাল, মোরসালিন, হেমায়েত ও তোরাব আলী মেয়েটিকে শীলতাহানী করে বাসা থেকে মারধর করে তাড়িয়ে দেয়। একই ঘটনার সূত্র ধরে গত ৫ আগষ্ট মেয়েটি পুনরায় জিয়ার“লের বাসায় গিয়ে জিয়ার“লকে বিয়ের কথা বললে, জিয়ার“ল তাকে বিয়ে করতে অস্বীকৃতি জানায় এবং তার বাবা ও বন্ধুদের দ্বারা বাসা থেকে বের করে সুকৌশলে ১০নং কমলপুর ইউ,পি’র চেয়ারম্যান মোঃ মাজদেুর রহমান জুয়েল স্থানীয়ভাবে আপোষ মিমাংসায় ব্যর্থ হয়ে ৭নং ওয়ার্ডের মেম্বার মোঃ মকবুল হোসেনের বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়। পরে স্থানীয় ১০নং কমলপুর ইউ,পি’র ৭নং ওয়ার্ডের মেম্বার মোঃ মকবুল হোসেন ও ৪, ৫, ৬নং ওয়ার্ডের মহিলা মেম্বারনি মোছাঃ ফয়জুন নেছাসহ গ্রাম্য পুলিশের ২ সদস্য মেয়েটিকে নিয়ে দিনাজপুর কোতয়ালী থানায় নিয়ে আসে। দিনাজপুর কোতয়ালী থানার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) সহ কোতয়ালী থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ মোজাফফর হোসেন মেয়েটির মুখ থেকে তার জীবনে ঘটে যাওয়া বিস্তারিত জানার পর মোঃ জিয়ার“ল ইসলামের বির“দ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করার আদেশ দেন। বর্তমানে জিয়ার“ল ইসলামের বির“দ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে দিনাজপুর কোতয়ালী থানায় একটি মামলা র“জু হয়েছে। মেয়েরা শুধুমাত্র জিয়ার“ল ইসলামের নিকট ভোগের পণ্য। তার সাথে মুঠোফোনে কথা বললে এমনটিই আভাস পাওয়া যায়। সে মেয়েদের বিশু নামে আখ্যায়িত করে বলে এ রকম অনেক বিশুর সাথেই আমি দৈহিক সম্পর্ক করেছি। তাই বলে কি সকলকেই বিয়ে করতে হবে? এভাবে মেয়েরা কিছু কিছু ছেলেদেরকে বিশ্বাস করে তাদের জীবনের সবচেয়ে অমূল্য সম্পদটি হারাচ্ছে। এই চরিত্রের জিয়ার“লদের বির“দ্ধে কঠোর শাস্তির ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য আইন-শৃক্সখলা রক্ষাকারী বাহিনীর উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করছেন এলাকাবাসী।

 

Default Ad Banner

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *