শিরোনাম

12 Apr 2021 - 09:01:29 am। লগিন

Default Ad Banner

জলঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাধারণ সম্পাদককে বহিস্কার করে টি-আরের টাকা ভাগবাটোয়ারা

Published on Tuesday, May 19, 2020 at 10:47 pm 100 Views

 

মোঃ শাহিনুর রহমান,নীলফামারী প্রতিনিধিঃ স্থানীয় সাংসদ কতৃক ১৯- ২০ অর্থ বছরের বরাদ্দকৃত টি-আরের ৪৪ হাজার টাকা ভাগবাটোয়ারা করার অভিযোগ উঠেছে নীলফামারীর জলঢাকা উপজেলা রিপোর্টার্স ইউনিটির মেয়াদ উত্তিন্ন কমিটির সভাপতি মৃত্যুঞ্জয়ের বিরুদ্ধে। উপজেলা রিপোর্টার্স ইউনিটির অফিসকে হ-য-ব-র-ল রেখে কয়েকজনকে লোভ দেখিয়ে ৪৪ হাজার টাকা ভাগবাটোয়ারা করার অভিযোগ তুলেছে সাধারন সম্পাদক শাহাজাহান কবীর লেলিন। তিনি বলেন, আমাদের বসার জায়গা থাকলেও সংস্কারের জন্য অফিসটি জরাজীর্ণ অবস্থায় পড়ে আছে। তাই এমপি কতৃক টি আরের ৪৪ হাজার টাকা উত্তোলন করে অফিস মেরামতের প্রস্তাব দিয়েছে। সভাপতি মৃত্যুঞ্জয় আমার প্রস্তাবটি প্রত্যাখ্যান করে কিছু সাংবাদিক ভাইদের ভুল বুঝিয়ে আমাকে নামে মাত্র বহিস্কার দেখিয়ে বিভিন্ন অনলাইন পোর্টালে প্রকাশ করে। আর এই বহিষ্কারের সংবাদটি সৃষ্টি করেছে এক চাঞ্চল্যকর ঘটনার। সভাপতির বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগ তুলে ধরেন তিনি (লেলিন)। জলঢাকা রিপোর্টাস ইউনিটির দুই পক্ষের ঘাত-প্রতিঘাত সংবাদ প্রকাশে ঝড় তুলেছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে। যার ফলে সাংবাদিকদের নিয়ে আলোচনা ও সমালোচনার ঝড় উঠেছে বিভিন্ন মহলে, এছাড়াও নিন্দাও জানিয়েছে অনেকে। সাধারন সম্পাদক বহিস্কার ও টি- আরের টাকা ভাগবাটোয়ারা বিষয় সাবেক সভাপতি মৃত্যুঞ্জয় বলেন, কেউ তাকে চায়না, সবাইকে বলেছি তোমরা তার সাথে যাও আমি থাকবো না। টি-আরের টাকা ভাগবাটোয়ারার ভাগ লেলিনো নিয়েছে বলে জানান এই সাবেক সভাপতি। সাধারণ সম্পাদক শাহজাহান কবীর লেলিন বলেন,এমপি টি-আর বরাদ্দ থেকে ৪৪ হাজার টাকা দিয়েছিলেন অফিস মেরামতের জন্য। কিন্তু তা না করে টিআর প্রকল্পের বরাদ্দকৃত টাকা ভাগবাটোয়ারা করে নেন তারা। টাকা উত্তোলন ও ভাগবাটোয়ারার আগেই আমাকে বহিস্কার দেখিয়েছে, আমি নেবো কেন। বহিস্কারের ব্যাপারে জেলা রিপোর্টাস ইউনিটির আহবায়ক পারভেজ উজ্জল জানান, বহিস্কারের বিষয়টি দুঃখ্যজনক। বহিস্কার করে আমাকে জানানো হয়েছে, এটা ঠিক করেনি। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহবুব হাসান জানান, কাজের জন্য বরাদ্দ কাজ না হলে আইনগত ব্যবস্থা নিতে হবে। টি-আরের বরাদ্দকৃত ৪৪ হাজার টাকা ভাগবাটোয়ারার বিষয় এমপি মেজর(অরঃ) রানা মোহাম্মদ সোহেল মুঠো ফোনে জানান, জানলাম বিষয়টি দেখতেছি।

Default Ad Banner

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *