শিরোনাম

13 May 2021 - 08:24:39 am। লগিন

Default Ad Banner

ঘুঘুডাঙ্গা চৌধুরী পরিবারের উজ্জ্বল নক্ষত্র ডাঃ চৌধুরী মোসাদ্দেকুল ইজদানী

Published on Wednesday, August 7, 2019 at 6:22 am 299 Views

পিসি দাস: ডাঃ চৌধুরী মোসাদ্দেকুল ইজদানী দিনাজপুর জেলার সদর উপজেলার দক্ষিণ কোতয়ালীর ঘুঘুডাঙ্গার জমিদার পরিবারে ১৯৫২ সালের ২৩ অক্টোবর জন্ম গ্রহণ করেন। তিনি মঈনউদ্দিন আহম্মেদ চৌধুরী ও ফাতিমা চৌধুরীর একমাত্র পুত্র সন্তান। মঈনউদ্দিন আহম্মেদ চৌধুরী ছিলেন তৎকালীন প্রাদেশিক সরকারের সদস্য এবং পার্লামেন্টের সেক্রেটারী (প্রথমে স্বরাষ্ট্র এবং পরে শিল্প ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে) ছিলেন। তিনি ১৯৬০ সাল থেকে ১৯৭১ সাল পর্যন্ত গচঅ এর দায়িত্ব পালন করেন।
তিনি ১৯৭৯ সালে এমবিবিএস পাস করে বিরল সদর হাসপাতালে যোগদান
করেন। তারপর তিনি ঐ সালেই ওজঈঝ ওহঃবৎহধঃরড়হধষ জবফ ঈৎড়ংং সোসাইটির অনুরোধে তিনি উখিয়া টেকনাফ ও ক·-বাজারে বার্মিজ রিফিউজি রিলিফের কার্যক্রমে ৫ মাস সেবা প্রদান করেন। ১৯৮১ সালে তিনি মুন্সিপাড়াস্থ আল-হাজ্ব শাহ্ধসঢ়; আবু বক্কর এর প্রথমা কন্যা কানিজ ফাতেমার সহিত বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হোন এবং তিনি এক পুত্র সন্তান ও এক কন্যা সন্তানের জনক। তাহার একমাত্র মেয়ে মাহ্ধসঢ়;জাবীন ইজদানী দিনাজপুর মেডিকেল কলেজের প্যাথলজি বিভাগে কর্মরত এবং ছেলে মোমতাহিনুল ইজদানী ফাইম সফর্টওয়ার ইঞ্জিনিয়ার হিসাবে একটি বে-সরকারী প্রতিষ্ঠানে কর্মরত আছেন। ১৯৮২ সালের তার বাবার আদেশে সরকারী চাকুরী ইস্তফা দিয়ে তিনি দিনাজপুর ডায়াবেটিকস হাসপাতালে চীফ
মেডিকেল অফিসার হিসাবে যোগদান করেন।
তিনি পরবর্তীতে ডায়াবেটিকস হাসপাতালের চীফ এ·িকিউটিভ ডাইরেক্টার হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি একধারে সমাজ সেবক, দানশীল ও সাদা মনের মানুষ হিসাবে বিশেষভাবে চিহ্নিত। তিনি ডায়াবেটিকস হাসপাতালের চাকুরী ইস্তফা দিয়ে নিজেই ঈদগাঁহ আবাসিক এলাকা সিএন্ড বি মোড়ে ডায়াগনস্টিক সেন্টার স্থাপন করেন।
সেখানে তিনি গরীব ও দুস্থ রোগীদের বিনামূল্যে সেবা প্রদান করেন। তিনি একাধারে দিনাজপুর গাউসুল আজম চক্ষু হাসপাতালে ১২ বৎসর যাবত নির্বাচিত সেক্রেটারীর দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি বর্তমানে বিএনএসবি চক্ষু হাসপাতালের সেক্রেটারী। তিনি দিনাজপুরে ¯^নাম ধন্য অনেক প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে যুক্ত আছেন। নির্বাহী সদস্য, দিনাজপুর সদর থানা সমাজ সেবা পরিষদ, আজীবন সদস্য জিয়া হার্ট ফাউন্ডেশন, প্রথম চীফ মেডিকেল অফিসার দিনাজপুর ডায়াবেটিক হাসপাতাল, সভাপতি ঘুঘুডাঙ্গা স্কুলও কলেজ, সভাপতি ঘুঘুডাঙ্গা মাদ্রাসা, সভাপতি পল্লী মঙ্গল সমিতি ঘুঘুডাঙ্গা, সদস্য স্টেশন ক্লাব, সাধারণ সম্পাদক এডাব দিনাজপুর, নির্বাহী পরিচালক অনন্যা সংস্থা, সদস্য জেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটি, পরিচালক ফাতেমা মঈন উদ্দীন ডায়াগনস্টিক সেন্টার। তিনি দীর্ঘদিন যাবৎ সমাজের সকল স্তরের গরীব, ধনী, সকল প্রকার মানুষের নির্বিকারে সেবা দিয়ে যাচ্ছেন। ২০১৭ সালের ১৩ই মে তার স্ত্রী কানিজ ফাতেমা বেগম হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে জিয়া হার্ট ফাউন্ডেশনে শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন।

Default Ad Banner

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *