27 Oct 2021 - 09:53:55 am। লগিন

Default Ad Banner

ক্ষোভ-প্রতিবাদে ফুঁসছে কাশ্মির

Published on Sunday, October 13, 2019 at 6:35 pm 115 Views

kashmir unrest

এমসি ডেস্কঃ কাশ্মির খুলে দেয়া হয়েছে পর্যটনের জন্যে। মোবাইল নেটওয়ার্কের ওপর থেকে লাগামও সরিয়ে নেয়া হচ্ছে। জনসাধারণকে স্বাভাবিক জীবনযাপনের ফিতে যেতে অনুরোধ করেছে প্রশাসন। দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী দাবি, গত দু’মাসে একটি গুলিও লাগেনি কারো গায়ে, বরং কাশ্মির নিয়ে বিরোধী আশঙ্কা নিষ্ফল প্রমাণিত হয়েছে। তবে সম্প্রতি জম্মু ও কাশ্মির ঘুরে এসে চার সমাজকর্মীর দল যে প্রতিবেদন দিয়েছেন তাতে বাস্তবতা মিলছে না সরকারি বয়ানের সাথে।

এ চারজন হলেন সমাজকর্মী শবনম হাসমি, সাংবাদিক রেবতী লাউল, মনোবিদ অনিরুদ্ধ কালা এবং জনস্বাস্থ্যকর্মী ব্রিনেল ডিসুজা। তারা গত ২৫-৩০ সেপ্টেম্বর ছিলেন কাশ্মিরে, আর জম্মুতে ৬-৭ অক্টোবর। সকল শ্রেণিপেশার সকল ধর্মের মানুষের সাথেই তারা কথা বলেন। রাজনীতিক, স্কুলশিক্ষক, আমলা, গৃহবধূ, ট্যাক্সিচালক, ছাত্র, কবি, ব্যবসায়ী, ফলবিক্রেতা, কৃষিজীবী, শিশু, সমাজকর্মী, সাংবাদিক, এমনকি ক্যাটারিং ব্যবসায়ীর সাথেও। হোক তা শ্রীনগর থেকে বারামুলা, কিংবা অনন্তনাগ থেকে বাদগাম এবং জম্মু— তারা সর্বত্রই শুনেছেন একই আর্তচিৎকার।

এই দু’মাসে কাশ্মির অধ্যুষিত এলাকায় একটা গুলিও ছোড়া হয়নি বলে বারবার বলে আসছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। এটাকেই কাশ্মিরপর জনগণের শান্তির প্রতি সমর্থন বলে দাবি করছে সরকার। কিন্তু শবনমদের রিপোর্ট বলছে, তারা দোকানপাট, অফিস বন্ধ রেখেছেন নিজে থেকেই। দোকানপাট বন্ধ রাখার জন্যে জঙ্গী সংগঠনের সাঁটানো পোস্টার তারা কেউ কেউ দেখেছেন। কিন্তু আধাসামরিক বাহিনী তাদেরকে জোর গলায় দোকান খোলা রাখতে বলার প্রতিবাদেই বন্ধ রেখেছেন সব।

৩৭০ বাতিল হওয়ায় জম্মুতে সবাই উল্লাস করছেন, সংবাদমাধ্যমের একাংশে যে এ রকম একটা ছবিও তুলে ধরা হয়েছে বারবার, তার অনেকটাই সত্য নয় বলেই মনে হয়েছে শবনমদের। জম্মুতে তেমন কোনও কড়াকড়ি । গাড়ি চলাচল অনেকটাই স্বাভাবিক, কাজ করছে মোবাইল নেটওয়ার্ক। তবু হোটেলগুলো একদম ফাঁকা। এক মালবাহক হতাশার সূরে বলেই ফেলেছেন, ওদের(কাশ্মিরের) যদি একটা চোখ নষ্ট হয়ে থাকে, আমাদের দু’টো গেছে।

এমনটা কেন, জানালেন জম্মুর লোকজনই। জম্মুর পরিবহন ব্যবসা থেকেই আসতো প্রায় ৩৫ কোটি টাকা। কিন্তু গত ৫ আগস্টের পর এ ব্যবসায় সম্পূর্ণ ধ্বস নামে। যেখানে প্রতিদিন অন্তত ৫০০ মালবাহী ট্রাক আশেপাশের এলাকায় যেত, গত দু’মাসে এ সংখ্যাটা চারদিনে ‘একটা ট্রিপ’ এ নেমে এসেছে।

সম্প্রতি দিল্লিতে একটি সাংবাদিক সম্মেলন করেন শবনম-রেবতীরা। রেবতী সেখানে দাবি করেন, ‘জম্মুর মানুষ মুখ খুলছেন কাশ্মির থেকেও কম। তাদের বলতে বাধ্য করা হচ্ছে যে তারা ৩৭০ বাতিলে খুশি।’

Default Ad Banner

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *