27 Jan 2021 - 07:50:49 pm। লগিন

Default Ad Banner

কুড়িগ্রামেই অবস্থিত দুই দেশের এক মসজিদ, দ্রুত দর্শনীয় স্থানের ঘোষণা চাই

Published on Wednesday, November 13, 2019 at 3:22 pm 81 Views

এমসি ডেস্কঃ কুড়িগ্রামের ভুরুঙ্গামারী উপজেলার পাথরডুবি ইউনিয়নের ভারতের সীমান্তবর্তী দক্ষিণ বাঁশজানি ঝাঁকুয়াটারী গ্রামে ব্রিটিশ আমলে নির্মিত বাঁশজানি ঝাকুয়াটারী জামে মসজিদ অবস্থিত।
মসজিদটি নির্মানের পর থেকেই আজান হলেই দুর-দূরান্ত থেকে ধর্মপ্রাণ মুসলমান ছুটে আসতো নামাজ আদায় করতো।এভাবেই নামাজ চলতে থাকলো বছরের পর বছর, যুগের পর যুগ, শতাব্দী পেরিয়ে ৪৭ শে যখন দেশ ভাগ হয়ে গেল তখনও দুদেশের মানুষ আযান হলেই এক মসজিদে একসাথে এক কাতারে নামাজ আদায় করতো।আবার ১৯৭১ সালের পর যদিও দুইটা ভিন্ন দেশ-ভারত আর বাংলাদেশ এবং দুদেশের সীমানার মাঝে কাঁটা তারের বেড়া।তবুও সীমান্তঘেঁসা বাশজানির এই মসজিদে আযান হলেই নামাজের জন্য কাঁটাতারের ওপার থেকে ছুটে আসে ভারতের মানুষ আর এদিক থেকে ছুটে যায় রাংলাদেশের মানুষ।শুধু তাই নয় এমসজিদটির মেরামত ও পরিচালনা ব্যায় সেটাও চলে দুদেশের মানুষের টাকায়।
এমসজিদটি যেন দুই দেশের এক মসজিদ।
এই এলাকায় দুদেশের মানুষের একসাথে নামাজ ও হৃদয়ের সেতুবন্ধন যা চলছে প্রায় ২০০বছর থেকে।
এই মসজিদ কে ঘিরে রয়েছে অনেক কৌতূহল অনেক সম্ভাবনা।এই মসজিদ টি দেখতে দূর-দূরান্ত থেকে অনেকেই ছুটে আসছে।আবার অনেকেই আসে দুদেশের মানুষের সাথে একসাথে নামাজ আদায় করতে।অনেকেই আসে দু-দেশের মানুষের বন্ধন দেখতে। ইতোমধ্যে জেলা প্রশাসক,পুলিশ সুপার,সাংবাদিক সহ বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মসজিদটি পরিদর্শন করেছেন।
তাই মসজিদের সৌন্দর্য্য বর্ধনসহ দুই দেশের এক মসজিদ কে দ্রুত দর্শনীয় স্থান হিসেবে ঘোষণা করা হবে এমনটাই প্রত্যাশা।
দাবীটি বাস্তবায়নে কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করছি এবং সকলের সর্বাত্বক সহযোগিতা একান্ত কাম্য।

এগিয়ে যাক, সম্ভাবনার কুড়িগ্রাম......
এগিয়ে যাক, বাংলাদেশ..............

Default Ad Banner

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *