16 Jan 2021 - 07:56:03 am। লগিন

Default Ad Banner

এস আই সেলিম জাহাঙ্গীরের মৃত্যুতে সিনিয়র সহকর্মীর স্ট্যাটাস

Published on Friday, August 30, 2019 at 2:13 pm 129 Views

এমসি ডেস্কঃ দুপুর তিনটায় অফিস থেকে বাসায় এসে লান্চ করতে বসেছি। ওসি সদরের ফোন পেয়ে কোনমতে নাকেমুখে দুটো ভাত গুজে, ইউনিফর্ম পরে বের হয়ে দেখি গাড়ী নাই, অপেক্ষা করতে না চেয়ে মোটর সাইকেলেই রওয়ানা দিতে যাবো ,তখন গাড়ী আসাল, দ্রুত সদর হাসপাতালে গেলাম।জীবনে অনেক ধরনের মৃতদেহ দেখেছি চাকরীসূত্রে। মাথায় গুলিবিদ্ধ সহকর্মীর মৃতদেহ দেখার কষ্টের মাত্রাটা অন্যরকম।আজ দুপুরে নিজের সার্ভিস পিস্তল মাথায় ঠেকিয়ে আত্মহত্যা করেছেন সদর ফাড়ির এসআই সেলিম।

ডিআইজি স্যার এসেছেন রংপুর থেকে।সেলিমের ভাড়া বাসায় গিয়ে তার সাত বছরের ছেলের দিকে তাকিয়ে বুকের ভেতরটা মোচড় দিয়ে উঠল। গতকাল রাতে একটা অভিযানে গিয়েছিলাম হঠাৎ করেই, যাওয়ার আগে সারিমের সাবধানবানী তুমি বুলেটপ্রুফ আর হেলমেট ঠিকমত পড়ে থাকবে, সে কথাগুলোই মনে পড়ছিল বারবার।সেলিমের হতভাগ্য ছেলে বাবার মৃত্যুর এক মিনিট আগেই বাবাকে দেখেছে পিস্তল হাতে , একদিন আগেই সেলিমের বাবা মা এসেছেন সন্তান সম্ভবা ছেলে বৌয়ের যত্ন নিতে। একদিন পর সেলিমের ইন্সপেক্টরশীপ পরীক্ষা ,তার বাবা চেয়েছিলেন এই বয়সেও ছেলের সাথে পরীক্ষা হলে যেতে , যাতে করে তার ছেলের পরীক্ষা ভাল হয় বাবার সাহচর্যে।কথা বলে জানতে পারলাম সেলিম গত এক বছর যাবত ডিপ্রেশনে ভূগছিল, সহকর্মীদের কাছে হয়তো বিষয়টা গোপন ছিল।

আবারও মনে পড়ে গেল যে বিষয়টা অনেকদিন যাবত ভাবছি।বাংলাদেশ পুলিশের সদস্যরা যে চরম স্ট্রেসের ভেতর দিয়ে যায় তাতে নিয়মিত মানসিক স্বাস্থ্য পরীক্ষা এবং কাউন্সেলিং অত্যন্ত জরুরী।বিদেশে যেটা নিয়মিতই করা হয়। আমাদের দেশের পুলিশের আচরনগত সমস্যার জন্য এই স্ট্রেসও অনেকটা দায়ী বলে আমার মনে হয়।

পুলিশ লাইনে জানাজা শেষে বিদায় জানালাম সহকর্মী সেলিম কে, জানিনা তার সাত বছরের ছেলে আর অনাগত সন্তানের ভবিষ্যতে কি আছে?

আল্লাহ সকলের সহায় হোন।

Default Ad Banner

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *