16 Jan 2021 - 11:22:36 pm। লগিন

Default Ad Banner

অবশেষে আত্মীয়দের সঙ্গে দেখা করার অনুমতি দেওয়া হল জম্মু-কাশ্মীরের দুই প্রাক্তন বন্দি মুখ‍্যমন্ত্রীকে

Published on Sunday, September 1, 2019 at 11:31 am 115 Views

এমসি ডেস্কঃ জম্মু-কাশ্মীরকে দেওয়া সংবিধানের বিশেষ মর্যাদা ৩৭০ ধার রদ হওয়ার পর প্রাক্তন দুই মুখ‍্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতি ও ওমর আবদুল্লাহ কে গ্ৰেফতার করা হয়। এছাড়াও একাধিক নেতৃত্বকে গ্ৰেফতার করা হয়। বন্ধ করে দেওয়া হয় স‍্যোশাল মিডিয়া, ইন্টারনেট পরিসেবা। যার ফলে ক্ষোভে ফেটে পড়ে পুরো কাশ্মীরবাসী। প্রাক্তন দুই মুখ‍্যমন্ত্রী কে আটক করার পর তার পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে দেখা করতে দেওয়া হয়নি বলেও অভিযোগ করেছেন তাদের আত্মীয়রা।

৩৭০ ধারা প্রত্যাহার এবং দুটি পৃথক কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলিতে বিভক্ত করার সরকারি সিদ্ধান্তের আগে ‘সতর্কতামূলক ব্যবস্থা’ হিসাবে গত ৫ অগাস্ট তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়। ওমর আবদুল্লাহর পরিবার এই সপ্তাহে দু’বার শ্রীনগরের হরি নিবাসে তাঁর সঙ্গে দেখা করেছিলেন, কেন্দ্র সরকার জম্মু ও কাশ্মীর বিষয়ক পদক্ষেপের পরপরই আবদুল্লাহকে এখানে নিয়ে আসা হয়। সূত্রের খবর, তাঁর বোন সাফিয়া এবং তাঁর সন্তানদেরও শনিবার ২০ মিনিটের জন্য আবদুল্লাহর সঙ্গে দেখা করার অনুমতি দেওয়া হয়েছিল।

বৃহস্পতিবার মেহবুবা মুফতির মা ও বোনকেও তাঁর সঙ্গে দেখা করার অনুমতি দেওয়া হয়েছিল বলে খবর। পিডিপি সভাপতি মুফতি চেসমাশাহীতে পর্যটন বিভাগের একটি আবাসে রয়েছেন। ওই ভবন এখন সাব-জেল হিসাবেই ব্যবহার করা হচ্ছে। সোমবার ওমর আবদুল্লাহর সঙ্গে দেখা করার অনুমতি পাওয়ার আগে সাফিয়া এবং তার কাকীমা বেশ কয়েকবার জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে গিয়েছিলেন বলে জানিয়েছেন। কর্মকর্তারা তাঁদের ফোনে যোগাযোগের অনুমতি দিলে তাঁরা ১২ অগাস্ট আবদুল্লাহ সঙ্গে কথা বলার সুযোগ পান।

ওমর আবদুল্লাহর বাবা এবং তিনবারের মুখ্যমন্ত্রী ফারুক আবদুল্লাহকেও গৃহবন্দী করা হয়েছে, তাঁর সঙ্গে ফোনে যোগাযোগের কোনও অনুমতিও দেওয়া হয়নি। সূত্র জানাচ্ছে, জম্মু ও কাশ্মীর প্রশাসনের দুই উর্ধ্বতন কর্মকর্তা গত কয়েক সপ্তাহ ধরে তিনবার তাঁকে দেখতে গিয়েছিলেন। তবে বারবার তাঁর ছেলের সাথে দেখা করতে চাওয়ার অনুরোধ করলেও তা অস্বীকার করা হয়।

সূত্রের খবর, ওমর আবদুল্লাহ বা মেহবুবা মুফতির দু’জনেরই কারও কেবল চ্যানেলে সংবাদ দেখা এবং সংবাদপত্রের অভাবে খবর পড়ারও সুযোগ নেই। তবে, কর্মকর্তারা প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীদের সিনেমা দেখার জন্য একটি ডিভিডি প্লেয়ার পাঠিয়েছেন। ৪৯ বছর বয়সী ন্যাশনাল কনফারেন্সের এই নেতা তাঁর কিন্ডল ট্যাবলেটে বই পড়েন এবং নিয়মিত হরি নিবাসের চত্বরে হাঁটেন।

যদিও কর্তৃপক্ষ দাবি করছে, তাঁরা ধীরে ধীরে জম্মু ও কাশ্মীরের নিয়ন্ত্রণ শিথিল করছে তবে রাজনৈতিক নেতাদের শিগগিরই মুক্তি পাওয়ার কোনও ইঙ্গিত পাওয়া যায়নি। রাজ্যপাল সত্য পাল মালিক সম্প্রতি কৌতুক করে বলেন যে, বন্দি ওমর আবদুল্লাহ এবং মেহবুবা মুফতির পক্ষে বন্দি থাকাই উপকারী কারণ যখন তাঁরা বেরোবেন আরও বেশি ভোট পেতে পারবেন।

Default Ad Banner

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *